মজার আফগানি পোলাও

পোলাও খেতে আমরা সবাই কম বেশি পছন্দ করি। তবে পোলাও বলতে বা শুনতে শুনতে কিছুটা একঘেয়েমিও চলে আসে। একই স্বাদ কতবার ভালো লাগে। মাঝে মাঝে ভিন্ন স্বাদ পেলে ক্ষতি কি। আজকে যেনোতেনো পোলাও না ভিন্ন স্বাদের পোলাওর রেসিপি জানাবো। আর সেটা হচ্ছে আফগানি পোলাও উইথ মাটন। এবার তাহলে চলুন দেখে নেয়া যাক রেসিপি-টি।

উপকরণ যা লাগবে:
১. পেঁয়াজ কুঁচি – ২ কাপ.
২. সাফোলা অ্যাকটিভ তেল – ১.৫ কাপ
৩. পানি – ৪/৫ কাপ
৪. লবণ – ২.৫
৫. মাটন – ৫০০ গ্রাম
৬. রসুন বাটা – ২ টেবিল চামচ
৭. গরম মশলা – ১ চা চামচ
৮. এলাচি পাউডার – ১ চা চামচ
৯. চিনি – ২/৩ টেবিল চামচ
১০. গাজর – ১ কাপ (জুলিয়েন কাট)
১১. কিশমিশ – ১/৪ কাপ
১২. সেদ্ধ পোলাও চাল – ১ কেজি

যেভাবে রান্না করতে হবে:
১. প্রথমে একটি প্যানে অল্প সাফোলা অ্যাকটিভ তেল নিয়ে তাতে ১ কাপ পেঁয়াজ কুঁচি দিয়ে হালকা সোনালি রঙ না হওয়া পর্যন্ত ভাঁজতে থাকুন। এবার এতে মাটন দিয়ে হাল্কা নেড়ে ভেজে নিন। রসুন বাটা দিয়ে মাংস রঙ না বদলানো পর্যন্ত রান্না করুন। খেয়াল রাখবেন যাতে মাংস পুড়ে না যায়।

২. এবার এতে পানি ও লবণ দিন। পানি অর্ধেক না হওয়া পর্যন্ত চুলায় রাখুন। মাংসের স্টক তৈরি হয়ে গেলে তা থেকে মাংস আলাদা করে রেখে দিন। স্টকটি আরও রান্না করুন যতক্ষণ এটি ১-১.৫ কাপ পরিমাণের সমান না হয়। হয়ে গেলে স্টক নামিয়ে ছেঁকে নিয়ে একটি বাটি তে আলাদা করে রেখে দিন।

৩. এবার অন্য একটি ফ্রাইং প্যানে চিনি দিয়ে তা ক্যারামেলাইজ করে নিন। এবার এতে মাংসের স্টক ঢেলে দিন। এখন এতে ১.৫ চা চামচ গরম মশলা ও এলাচি গুঁড়ো দিয়ে ভালোমত নেড়ে নামিয়ে রেখে দিন।

৪. এখন আর একটি প্যান নিয়ে তাতে তেল ও পেঁয়াজ কুঁচি দিয়ে আবার সোনালি রঙ না হওয়া পর্যন্ত ভাজুন। এবার তাতে সেদ্ধ মাংসগুলো দিয়ে ৩-৪ মিনিট ভাজুন।

৫. অন্য আর একটি প্যানে তেল দিয়ে তাতে গাজর, কিশমিশ ও ২-৩ টেবিল চামচ চিনি মিশিয়ে ২-৩ মিনিট ভেঁজে নামিয়ে নিন।

৬. সব শেষের পর্বে, একটি পাত্রে আগে থেকে সেদ্ধ পোলাও চাল দিয়ে তাতে মাটন স্টক দিয়ে দিন। এক এক করে বাকি গরম মশলা ও এলাচি গুঁড়ো ও ভাজা মাংস দিয়ে দিন। তার উপর দিন গাজর ও কিশমিশের মিক্সচার-টি। এবার পাত্রটি একটি ভারী কাপড় দিয়ে উপরে ঢেকে দিন। তার উপর ঢাকনা দিয়ে দিন। ১০-১৫ মিনিট পোলাও হতে দিন। হয়ে গেলে সব শেষে পরিবেশনের সময় কিশমিশ ও কাঠবাদাম কুঁচি দিয়ে দিন উপরে।

ব্যস! হয়ে গেলো ঘরে বসেই মজাদার আফগানি পোলাও উইথ মাটন। যদি রেসিপিটা ভালো লেগে থাকে বাসায় অবশ্যয় একবার রান্না করে ফেলুন।

ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave A Reply

Your email address will not be published.

shares