প্রবাস জীবন

পাসপোর্ট হারালে সাথে সাথে যা করবেন

দেশের বাইরে যাওয়ার কথা আসলে প্রথমেই যে জিনিসটি নিয়ে ভাবতে হয় তা হল পাসপোর্ট। এই পাসপোর্ট করাতেই অনেক ঝক্কি-ঝামেলা পোহাতে হয়। আর হারিয়ে গেলেতো কথাই নেই। আর যদি সেটা বিদেশের মাটিতে হয়, তাহলে বুঝেনিতে হবে- আপনি চরম বিপদে পরেছেন। তবে পাসপোর্ট হারিয়ে যাওয়ার পর কিছু নিয়ম মানলে সেই বিপদ থেকে আপনি রক্ষ পেতে পারেন। তাই বিদেশের মাটিতে পাসপোর্ট হারালে কী করবেন? চলুন জেনে নেয়া যাক। ১. জিডি করুন : যে

বিদেশে পড়তে যাওয়ার আগে ১০ পরামর্শ

বিশ্বায়নের সবচেয়ে বড় সুফল পেয়েছে শিক্ষা। কৃত্রিম সীমান্তের জটিলতা পেরিয়ে বিভিন্ন দেশে পড়াশোনা বিশেষ একটা গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে। তবে কোনো দেশে পড়তে যাওয়ার আগে প্রয়োজন বেশ কিছু বিষয়ে জানাশোনা ও প্রস্তুতি। ১. প্রথমেই বিশ্ববিদ্যালয়, বিভাগ আর সেশন ঠিক করে নিতে হবে: যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আবেদন করার ধরন ইউরোপ ও অস্ট্রেলিয়ার চেয়ে একটু আলাদা। দেশের বাইরে পড়ালেখার পরিকল্পনা থাকলে তাই আগে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিষয়গুলো সম্পর্কে ‘গুগল’ করে বিস্তারিত জেনে নিন। আবেদনের

চিকিৎসার জন্য ভেলোর গেলে কী করবেন

ভারতের তামিল নাড়ু রাজ্যের ভেলোর শহরের সিএমসি (ক্রিশ্চিয়ান মেডিকেল কলেজ) ও শ্রী নারায়ণী হাসপাতালে বাংলাদেশের মানুষের আগমন বেশি। বাংলাদেশ থেকে অনেক রোগি সেখানে চিকিৎসা নিতে যান। তাই আগেই জেনে নিন ভেলোর কিভাবে যাবেন, কেমন খরচ, চিকিৎসকের সঙ্গে কিভাবে যোগাযোগ করা যায়? যা প্রয়োজন ভারত যেতে আগে দরকার পাসপোর্ট। এরপর ভিসা, যা ভারতীয় হাইকমিশন থেকে পাবেন। এগুলো সংগ্রহ করে ভেলোর গিয়ে আপনার কয়েক কপি ছবি, পাসপোর্টের কয়েকটি ফটোকপি ও কলম সঙ্গে

‘জাহান্নামের জীবন ছিল সৌদিতে’

বাংলাদেশি টাকায় প্রায় চার লাখ টাকা বেতনে যখন মালয়েশিয়ার একটি কারখানায় গুরবক কৌরের চাকরির কথা হয় তখন ভেবেছিলেন এবার হয়ত স্বপ্নগুলো সব পূরণ হবে। তবে শেষ পর্যন্ত তার সেই স্বপ্ন পরিণত হয় দুঃস্বপ্নে। এর কারণ বর্ণনা করতে গিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্থান টাইমসকে তিনি বলেন, ট্রাভেল এজেন্টের প্রতারণায় মালয়েশিয়া না পাঠিয়ে আমাকে পাঠানো হয় সৌদি আরবে। সেখানে ২০ সদস্যের এক পরিবারের গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করতে থাকি আমি। সেখানে জাহান্নামের মধ্যে বেঁচে

ফিনল্যান্ডে ফেলোশিপ প্রোগ্রামে স্কলারশিপ

ফিনল্যান্ডে ফেলোশিপ প্রোগ্রামে জন্য প্রতি মাসে ১৫০০ ইউরো স্কলারশিপ দিচ্ছে দেশটির ফিনিশ ন্যাশনাল এজেন্সি ফর এডুকেশন (ইডিইউএফআই)। শুধু যারা মেডিকেলে পড়াশোনা এবং গবেষণায় কাজ করেছেন তারা আবেদন করতে পাবেন। পৃথিবীর যে কোনো দেশের শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে। তবে রাশিয়া, চীন, ভারত, ব্রাজিল ও উত্তর আমেরিকার শিক্ষার্থীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। তিন থেকে ১২ মাসব্যাপী এই বৃত্তিতে প্রতি মাসে ১৫০০ ইউরো (১ লাখ ৪৫ হাজার ৮৯৮ টাকা প্রায়) দেওয়া হবে। কিভাবে আবেদন

শরণার্থী রোহিঙ্গা পরিবারের পুরুষ সদস্যরা কোথায়?

সপ্তাহখানেক আগে টেকনাফের কুতুপালং ক্যাম্পে এসেছেন আলমাস খাতুন। এখনো থাকার বন্দোবস্ত হয় নি। ক্যাম্পে এক পরিচিতজনের সাথে আছেন। জানতে চেয়েছিলাম তার সাথে পরিবারের আর কে কে এসেছেন বাংলাদেশে। আলমাস খাতুন বলছিলেন তার স্বামী এবং একমাত্র ছেলে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। এরপর মিয়ানমারের সেনাবাহিনী তাদের ধরে নিয়ে গেছে। তিনি জানেন না আদেৌ তারা বেঁচে আছেন কিনা। আলমাস খাতুনের মত অনেক নারী ও শিশু বাংলাদেশের কক্সবাজার এলাকার বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই

সৌদি আরবে অনলাইনে নারী গৃহকর্মীর কালোবাজার

সৌদি আরব এবং উপসাগরীয় আরব দেশগুলোকে বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপে নারী গৃহকর্মী কেনা-বেচা হচেছ। সরকারি নিয়ম-কানুন বিধি-নিষেধ এড়িয়ে অন-লাইনে বিদেশী নারী গৃহকর্মী বেচা-কেনার কালো বাজার তৈরি হয়েছে। এরকম একটি ফেসবুক গ্রুপ বিবিসির নজরে এসেছে যেখানে মানুষজন গৃহকর্মী চেয়ে পোস্টিং দিচ্ছেন। তার পোস্টে এক ব্যক্তি লিখেছেন – “ডিসেম্বরে বিদেশ ভ্রমণে যাওয়ার আগে এক, দুই বা তিনমাসের জন্য জরুরী ভিত্তিতে একজন গৃহকর্মী প্রয়োজন। ” আরেকজন পোস্ট দিয়েছেন, “ভ্রমণ বা পর্যটন ভিসায় এসেছেন, এমন

বাংলাদেশি শিক্ষার্থী পাচার হচ্ছে মালয়েশিয়ায়!

বিদেশে পড়ালেখা ও কাজের সুযোগ বাংলাদেশের অনেকের কাছেই সোনার হরিণ হাতে পাওয়ার মত। সারা জীবনের সঞ্চয় খরচ করে এমনকি জমি বিক্রি করেও অনেকেই উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাড়ি জমাতে চায়। এই আকাঙ্ক্ষাকে সুযোগ হিসেবে নিয়ে বাংলাদেশ থেকে বহু শিক্ষার্থীকে পাচার করছে একটি চক্র। মালয়েশিয়ার দ্য স্টার পত্রিকা অনুসন্ধান চালিয়ে মানব পাচারের এমন এক চক্রের সন্ধান পেয়েছে। “এজেন্ট” ধরে প্রতি বছর হাজার হাজার শিক্ষার্থী উচ্চশিক্ষার জন্যে বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ায় পাড়ি জমান। কিন্তু