স্বামীর সবচেয়ে বাজে অভ্যাসটাই আপনার আয়ু বাড়াচ্ছে!

স্বামীর সবচেয়ে বাজে অভ্যাসটাই আপনার আয়ু বাড়াচ্ছে!

আধুনিক বিজ্ঞানের এই যুগে কমবেশি সবাই ইতিমধ্যে জানি যে, সু-স্বাস্থ্যের জন্য এবং দীর্ঘায়ু লাভের জন্য বিয়ে বেশ উপকারী। একই সঙ্গে উচ্চরক্তচাপ এমনকি টাইপ-২ ডায়াবেটিস এর ঝুঁকিও অনেকাংশে কম দেখা যায় বিবাহিতদের মধ্যে।

কিন্তু চমকপ্রদ ব্যাপার হচ্ছে, আপনার অজান্তেই হয়তো আপনার স্বামীর অন্যতম বাজে অভ্যাসটাই আপনার আয়ু বাড়িয়ে তুলছে! তার পায়ুপথ নিঃসৃত বায়ু আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধক ব্যবস্থাকে আরো শক্তিশালী করে। হ্যাঁ, আপনি ঠিকই পড়েছেন, চলুন জেনে নেয়া যাক বিস্তারিত।

ইউনিভার্সিটি অব এক্সেটার এর গবেষকেরা জানান যে, হাইড্রোজেন সালফাইড যা কিনা পেটের বায়ুকে পঁচা ডিমের ন্যায় বাজে গন্ধ যুক্ত করে, তা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী হতে পারে যদি স্বল্প মাত্রায় প্রয়োগ করা হয়। আর আপনার স্বামীর চেয়ে ভালোভাবে এ কাজ আর কে করতে পারে!

বায়োমেডিক্যাল সায়েন্টিস্ট অ্যান্ড কনসালটেন্ট ড. এজে ট্রোরিয়ানো বলেন, ‘বায়ুত্যাগের মেকানিজমটা বুঝতে হলে প্রথমে আপনাকে বুঝতে হবে মানুষের দেহে জমা হওয়া উল্লেখযোগ্য পরিমাণ জীবাণুর কথা। আপনার জন্য উপকারী উপাদান এই জীবাণুদের মধ্যে নেই, আছে এর সঙ্গে বাই প্রোডাক্ট হিসেবে উৎপন্ন হওয়া হাইড্রোজেন সালফাইডের মধ্যে, যা কিনা প্রতিবার বায়ুত্যাগের সময় নির্গত হয়।’

গবেষণায় পাওয়া গেছে, বেশিরভাগ স্ত্রীরই অপছন্দ ওই দুর্গন্ধযুক্ত হাইড্রোজেন সালফাইডের মধ্যে রয়েছে ক্যানসার, হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোক, আর্থ্রাইটিস এবং স্মৃতিভ্রংশের ঝুঁকি কমানোর সক্ষমতা।

অন্য আরেক গবেষণা অনুযায়ী, হার্ট অ্যাটার্কে আক্রান্ত রোগীদের বেঁচে থাকা ক্ষেত্রে বিয়ে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রভাবক। যার মানে দাড়াচ্ছে, আপনি যদি অসুস্থতায় ভুগেও থাকেন, তার সামান্য বায়ুত্যাগ আপনাকে হয়তো করে তুলতে পারে চনমনে, সুস্থ এবং জীবন্ত। বলা চলে বায়ুত্যাগ হচ্ছে, আপনার প্রতি তার কেয়ারিং এর বহিঃপ্রকাশ।

তবে আপনি যদি অতিরিক্ত মাত্রার হাইড্রোজেন সালফাইড নিয়ে শঙ্কিত থাকেন, তাহলে আপনি মোটেও ভুল নন। তাই আপনার স্বামীকে বলুন অতিমাত্রার গ্যাস তৈরি করে এমন খাবার থেকে দূরে থাকতে, কারণ স্বল্প মাত্রায় হাইড্রোজেন সালফাইড হয়তো উপকারী কিন্তু অতিরিক্ত মাত্রায় হাইড্রোজান সালফাইড হতে পারে আপনার দেহের জন্য ক্ষতিকর।

সুতরাং এখন থেকে অন্তত পরবর্তীতে যখন নিজেকে হঠাৎ করে দুর্গন্ধের মধ্যে আবিষ্কার করবেন, এর মধ্যে আপনার স্বাস্থ্যের উপকার আছে জেনে হলেও রাগটাকে ঝেড়ে ফেলবেন।

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট

Sharing is caring!

Comments

comments

284 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *