স্কুলছাত্রকে পিটিয়ে হত্যা করল আওয়ামী লীগ নেতা, ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে চোর সন্দেহে রিয়াদ (১৪) নামে এক স্কুলছাত্রকে গাছের সঙ্গে বেঁধে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় উপজেলার গফরগাঁও ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. রশিদকে (৫৫)কে প্রধান আসামি করে ৯ জনের নামে হত্যা মামলা করা হয়েছে।নিহত রিয়াদের ফুফা আব্দুর রাজ্জাক বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে গফরগাঁও থানায় এ মামলা করেছেন। মামলায় আ. রশিদ ছাড়াও উথুরী-ঘাগড়া টাওয়ার মোড় বাজারের ব্যবসায়ী সাঈদ (৩৭), সিরাজ (৫৫), আ. আহাদ (৩৮), আশরাফুল (৩৫), মীর রাসেল (৩৫), মীর মনির (৩৪), কামরুল (৪৬), সোহেল (২৩)কে নামীয় ও আরো ৭/৮ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়। এদিকে, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে নামাজে জানাজা শেষে রিয়াদের লাশ উথুরী গ্রামের পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়।

গতকাল সকালে উথুরী গ্রামে সরজমিন গিয়ে দেখা যায় ‘চোর’ সন্দেহে ১৪ বছরের কিশোর রিয়াদকে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা রশিদের নেতৃত্বে নির্মম ও পৈশাচিকভাবে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় এলাকাবাসী স্তম্ভিত। বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চায়।রিয়াদের বাবা সাইদুর রহমান শাহীন গত ১১ বছর ধরে সৌদি প্রবাসী, মা মাবিয়া আক্তার বাক প্রতিবন্ধী। রিয়াদেরও কিছুটা মানসিক সমস্যা ছিল। সে মাঝে মধ্যে ভোর বেলায় কাউকে কিছু না বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে যেত আবার ফিরে আসতো।রিয়াদের কলেজ পড়ুয়া বোন নীলফুল নাহার শান্তা জানায়, ওইদিন ভোর বেলায় রিয়াদ বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। সাড়ে ৬টার দিকে খবর আসে রিয়াদকে টাওয়ারের মোড় বাজারের একটি গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধর করছে একদল লোক। আমি দৌড়ে টাওয়ারের মোড় বাজারে গিয়ে আমার ছোট ভাইকে ছেড়ে দিতে বলি। রশিদসহ কয়েকজন রামদা, লাঠি নিয়ে আমার দিকে তেড়ে এসে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজ করে। আমাকে বাড়ি ফিরে আসতে বাধ্য করে। বাড়ি এসে উপায়ন্তর না পেয়ে আমাদের বাড়ির লোকজনের মাধ্যমে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শামছুল আলম খোকনকে ঘটনাটি জানাই।

শান্তা জানান, তখনো বুঝতে পারেনি তারা আমার শিশু ভাইটিকে এত নির্যাতন করে, নির্মমভাবে মেলে ফেলবে। এদিকে, ঘটনার দুই দিন পরও এ ঘটনার কোনো আসামিকে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারেনি। এলাকাবাসী অভিযোগ করে জানায়, ঘটনার পরও অনেক আসামি ঘটনাস্থলে ও এলাকায় ছিল। পুলিশ তৎপর হলে তাদের ধরতে পারতো। ঘটনার পরপরই গফরগাঁও থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য টাওয়ার মোড় বাজারের ব্যবসায়ী কাজিম উদ্দিন (৫৫), রফিকুল ইসলামকে (৩০) আটক করে থানায় নিয়ে আসে। পরে বৃহস্পতিবার রাতে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়। গফরগাঁও থানার ওসি মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ খান বলেন, এ মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Comments

comments