,

সম্পর্ক ভাঙার পরে যা করবেন

সবকিছুরই শুরু এবং শেষ আছে। আমাদের সম্পর্কগুলোও এর বাইরে নয়। কিছু সম্পর্ক হয়তো সারাজীবন থেকে যায়, কিছু সম্পর্ক আবার ভেঙে যায়। কিন্তু হঠাৎ করেই আগের সব অভ্যাস থেকে বের হয়ে আসাটা মোটেই সহজ নয়। তার ওপর একাকিত্বের যন্ত্রণা তো রয়েছেই। আর এই একাকিত্ব থেকেই ভয় থাকে নতুন ভুলে জড়িয়ে পড়ার। তাই সম্পর্ক ভাঙার পরে এগোতে হবে বুঝেশুনে। সুযোগ খুঁজতে হবে পুরনো ভুল থেকে বের হয়ে আসার।

সম্পর্ক শেষ মানেই একাকীত্ব ভুলতে নতুন মানুষের খোঁজ শুরু। বিষয়টা মোটেই এত সহজ নয়। বরং নিজের সঙ্গে বসুন। কী চাইছেন সেটা বোঝার চেষ্টা করুন। অহেতুক হতাশায় না ডুবে বরং আনন্দ দেয় এমন কিছু করুন। খুব ঠান্ডা মাথায় ভেবে দেখুন, সম্পর্কটা ভাঙলো কেন? আপনার দিক থেকে কোনও সমস্যা ছিল কি? তা হলে আজই সে সবের একটা তালিকা করুন। পারতপক্ষে সে সব যেন আর চলার পথে থাবা বসাতে না পারে, সে দিকে যত্নবান হওয়া জরুরি। দু’-এক দিনের আলাপ থেকেই প্রেম কিংবা লাভ অ্যাট ফার্স্ট সাইট- হুড়োহুড়ি অনেক সময় ব্যাকফুটে ঠেলে দেয় বোঝাপড়াকে। কাজেই সঙ্গী বাছতে মনের সঙ্গে মাথাকেও গুরুত্ব দিন। এতে ভুল বোঝার আশঙ্কা কমে।

সম্পর্ক ভাঙলেই সোশ্যাল সাইটে গিয়ে তেড়ে প্রেমিক বা প্রেমিকাকে গাল পাড়েন? চিকিৎসকদের মতে, এসব কিন্তু হতাশার লক্ষণ। এ অভ্যাস ত্যাগ করুন আজই। যেকোনো বিষয়েই তিক্ততা বাড়তে না দেওয়াই ভালো। তার চেয়ে চেষ্টা করুন প্রাক্তনের সঙ্গে বন্ধুত্বটুকু রাখতে। এতে মন ভালো থাকে। একান্তই তা না পারলে এড়িয়ে চলুন। কিন্তু ঝগড়া-দোষারোপ এ সব কখনোই নয়। মনোবিজ্ঞানীরা বলেন, মন ভালো করার সবচেয়ে উপযুক্ত দাওয়াই বেড়ানো। সম্পর্কের ক্লান্তি থেকে বেরতে ব্যাগ গোছান, টিকিট কাটুন, ঘুরে আসুন দূরে কিংবা কাছে। চেনা পরিবেশ থেকে একটু আলাদা থাকুন ক’দিন। মনকে দিন তার নিজস্ব খোরাক। এতে হতাশা কমবে। ঝরঝরে হবেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন


     এই ধরনের আরো...