লাইফ-স্টাইল

শুধু বাইক নয় যত্ন চাই হেলমেটেরও

মোটরসাইকেল চালকদের অনেকে তার জুতাজোড়ার যতটুকু যত্ন করেন তার সিকিভাগ মনোযোগও পায় না মাথার ওপরে থাকা হেলমেটটায়। সকালে উঠে কার চকচকে জুতো আর নোংরা হেলমেট পরতে ভালো লাগে! হেলমেট পরার উপকারিতা আর এর যত্নটা জানলে অভ্যাসটা গড়তে সহজ হয়। আর যারা মাথায় হাওয়া লাগিয়ে ঘুরতে চান তাদের জন্য বলতে হচ্ছে, হেলমেট যে শুধু দুর্ঘটনায় জীবন বাঁচায় তা-ই নয়, এটি আপনার চোখ-মুখ-নাককেও সুস্থ-স্বাভাবিক রাখে।
তাই যখন মোটরসাইকেল চালাবেন তখন হেলমেট পরলে কাচটা নামিয়েই চালানোর অভ্যাস করুন। কারণ হেলমেটের কাচটা নামিয়ে পরলে ধুলোবালি সরাসরি চোখে-নাকে ঢুকতে পারে না। ধুলোবালি চোখে নানা জটিলতা তৈরি করে। বিশেষ করে শীতের আগে আর শীতের শেষে ধুলার মৌসুমটাতে চোখ ওঠার প্রকোপ বাড়ে। ধুলোবালির কারণে চোখ ওঠা রোগটা আরও জটিল আকার ধারণ করছে, সংক্রমণ চোখের রেটিনা পর্যন্ত চলে যাচ্ছে। এছাড়া যারা একটু ধুলোবালির বিষয়ে সংবেদনশীল তাদের ক্ষেত্রে হেলমেটটা হতে পারে কার্যকর প্রতিরক্ষা।
আবার কাচ নামিয়ে হেলমেটের ব্যবহার ত্বক আর চুলের উজ্জ্বলতাটাও নাকি বাড়িয়ে দেয়! হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেল চালালে বাতাসের দাপটে অনেকের চুল উড়ে যায়, ধুলোবালিতে ভর্তি হয় মাথা। আর যাদের হেলমেট পরলে মাথা ঘামে তাদের জন্য হেলমেটের ভেতরের স্তরটি পরিষ্কার রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।
হেলমেটের যত্নআত্তি:
হেলমেট কেনার সময় কেবল মাথার মাপটা বুঝে কিনবেন। মোটামুটি মানের হেলমেটগুলোর চারটা স্তর। সবার ওপরে প্লাস্টিক বা ফাইবারের শক্ত খোলস, তার নিচে কর্কশিটের আবরণ, এর নিচে ফোম, সবার নিচে থাকে কাপড়ের আচ্ছাদন। অনেক হেলমেটের এই ফোমসহ কাপড়ের আচ্ছাদন খুলে ধুয়ে পরিষ্কার করার ব্যবস্থা আছে। যেগুলোয় নেই সেগুলোর ক্ষেত্রে সুযোগ হলে হেলমেটটা নিয়মিত রোদে দিতে পারেন। এভাবে ঘামে ভেজা মাথার ত্বকের সংক্রমণ ঠেকানো যায়।
এছাড়া হেলমেটের ভেতরটা সরাসরি ডিটারজেন্টে ডুবিয়ে, ডেটল বা স্যাভলন দিয়ে ধুয়ে দিতে পারেন। সে ক্ষেত্রে ব্যবহারের আগে ভেতরটা খুব ভালোভাবে শুকিয়ে নিতে হবে। হেলমেটের সামনের কাচ পরিষ্কার রাখতে প্রতিদিন একবার মুছলেই যথেষ্ট। সপ্তাহে এক দিন হাতে সামান্য সাবান লাগিয়ে কাচটার দুই পাশে পরিষ্কার করে আবার শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে নিতে পারেন।
এভাবে করতে পারলে আপনার হেলমেটের কাচটি দীর্ঘদিন স্বচ্ছ থাকবে, রাতের বেলায়ও এই কাচ আপনাকে সুরক্ষা দেবে। যদি ভেতরটা পরিষ্কার করাটা ঝামেলার মনে হয় সে ক্ষেত্রে হেলমেটের নিচে পাতলা রুমাল বা সুতি কাপড় ব্যবহার করতে পারেন। তাহলে হেলমেটের একেবারে নিচের আচ্ছাদনটা আপনার মাথার সংস্পর্শে থাকবে না। আর ঘেমে গেলে বা ময়লা হলে রুমাল নিয়ে ধুয়ে ফেললেই হলো।
তথ্য ও ছবি : বিএস

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Comments

comments

2 Replies to “শুধু বাইক নয় যত্ন চাই হেলমেটেরও

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *