লাইফ-স্টাইল

যৌবন ধরে রাখতে কাঠ বাদামের দুধ, জেনে নিন তৈরির প্রণালী

বিভিন্ন পুষ্টিগুণে ভরা কাঠ বাদাম ও কাঠ বাদামের দুধ। এটি ওজন কমাতে সাহায্য করে। শরীরের ফোলাভাব কমায়। যৌবন ধরে রাখতে সাহায্য করে। মানবদেহে আরো অনেক উপকার করে থাকে। তাই প্রচলিত দুধের চেয়ে আমন্ড দুধ বা কাঠ বাদামের দুধ অনেক বেশি স্বাস্থ্যকর। এছাড়া কাঠ বাদামে গ্লুটেন থাকেনা, শর্করার পরিমাণ কম থাকে ও কোলেস্টেরল লেভেলকে নিয়ন্ত্রণে রাখে। সয়া দুধ হরমোনের লেভেলে সমস্যা সৃষ্টি করে কিন্তু কাঠ বাদামের দুধ এই সমস্যা সৃষ্টি করেনা এবং দামেও সস্তা। তাই এই দুধ সাধারণ দুধের পরিবর্তেও ব্যবহার করা যায়। কাঠ বাদামের দুধ খুব সহজে ঘরেই তৈরি করা যায়। আসুন জেনে নেই কিভাবে তৈরি করা যায় কাঠ বাদামের দুধ।

উপকরণ:

কাঠ বাদাম ১ কাপ কাঁচা

পানি ২ কাপ বা বাদাম ভেজানোর জন্য যতটুকু প্রয়োজন, সেই পরিমাণ

বাদাম ভিজানোর জন্য এজটি বোল

ছাঁকনি

পরিমাপের কাপ

ব্লেন্ডার বা ফুড প্রসেসর

সূতি কাপড়ের টুকরা ২টি পরিষ্কার

কাঁচের জার ১টি

যদি বেশি মিষ্টি স্বাদ চান তাহলে মধু বা চিনি বা অন্য কোনো সিরাপ সামান্য পরিমাণে নিতে পারেন

প্রণালি:

বাদামগুলো বোলে নিয়ে পানি দিতে হবে যাতে বাদামগুলো পুরোপুরি ডুবে থাকে। বাদাম পানি শোষণ করে ফুলে উঠবে।

বোলটিকে কাপড় দিয়ে ভালো করে ঢেকে দিতে হবে।

এই অবস্থায় সারারাত অথবা ২ দিন রেফ্রিজারেটরে রেখে দিন।

তারপর পানি থেকে বাদামগুলোকে ছেঁকে নিয়ে কলের পানিতে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন।

এরপর বাদামগুলোকে ব্লেন্ডারে নিয়ে ২ কাপ পানি দিন।

বাদামগুলোকে থেমে থেমে কিছুক্ষন ব্লেন্ড করুন।

তারপর ২ মিনিট সময় ধরে একাধারে ব্লেন্ড করুন।

এতে খুব ভালো একটি মিশ্রণ তৈরি হবে যা দেখতে সাদা বা স্বচ্ছ হবে।

মিশ্রণটি সূতি কাপড় দিয়ে ছেঁকে কাপে নিন।

২ কাপ আমন্ড দুধ পাওয়া যাবে।

এই দুধ যদি পর্যাপ্ত মিষ্টি না লাগে তাহলে এতে মিষ্টি করার জন্য মধু বা চিনি বা অন্য কোনো সিরাপ মিশিয়ে নিতে পারেন।

এই দুধ কাঁচের জারে নিয়ে মুখ বন্ধ করে ফ্রিজে রাখুন ২ দিন পর্যন্ত ভালো থাকবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *