,

মোবাইল প্রেসক্রিপশন

ফোনে কথা বলাটা যতই প্রয়োজনীয় হোক না কেন, আদতে এটা অনেক রোগের কারণ, যেনতেন রগ না। নিয়মিত দীর্ঘ সময় ফোনে কথা বললে অনেক বড় রোগের সম্মুখীন হতে হবে।

তাহলে এই ভয়াবহ রোগ থেকে বেঁচে থাকার জন্য কিছু টিপস জানা জরুরি

-বুক পকেটে মোবাইল রাখবেন না, অনেকেই বুক পকেটে মোবাইল রাখেন। এটি করা একদমই উচিত নয়। কারণ মোবাইল বুক পকেটে রাখলে এর ক্ষতিকর বিকিরণ সরাসরি হার্টের ক্ষতি করতে পারে।

-অনেক সময় ধরে ফোনে কথা বলবেন না, মোবাইল ফোনে দীর্ঘক্ষণ সময় ধরে কথা বলা থেকে বিরত থাকুন। যত বেশিক্ষণ মোবাইলে কথা বলবেন তত বেশি বিকিরণ মস্তিষ্কে পৌঁছে যাবে।

-ফোন চার্জে দিয়ে কথা বলা, ফোন চার্জে দিয়ে কথা বলা থেকে বিরত থাকবেন। সম্পূর্ণ চার্জ হওয়ার পর ফোন ব্যবহার করুন। আর যদি খুব প্রয়োজন পড়ে তবে চার্জ খুলে তারপর কথা বলুন।

-কথা বলার জন্য স্পিকার ব্যবহার করুন, ফোনে কথা বলার সময় স্পিকার বা হেডফোন ব্যবহার করার চেষ্টা করুন। এতে মোবাইল ফোনের ক্ষতিকর রশ্মি সরাসরি আপনার মস্তিষ্কে পৌঁছাতে পারবে না।

-লো ব্যাটারিতে ফোন না করা,ফোনের ব্যাটারি লো হয়ে গেলে যত পারবেন কম কথা বলবেন। লো ব্যাটারি অবস্থায় ফোন বেশি ক্ষতিকর রশ্মি বিকিরণ করে।

-প্রয়োজনে ফোনে কথা না বলে ম্যাসেজ করুন, যদি ছোট কোন কথা বা শুধু তথ্য পৌঁছানো প্রয়োজন পড়ে তবে ফোন না করে ম্যাসেজ করুন। এতে করে মোবাইল ফোনের ক্ষতিকর রশ্মির হাত থেকে কিছুটা হলেও রক্ষা পাবেন।

-ঘুমানোর সময় মোবাইল দূরে রাখুন, রাতে ঘুমানোর সময় মোবাইল ফোন বন্ধ রাখুন। না হলে সাইলেন্ট মুডে রেখে দিন। ঘুমানোর সময় মোবাইল মাথার কাছে রাখবেন না। মোবাইলকে বিছানার বাইরে রাখুন।

-দুর্বল সিগন্যাল এলাকায় মোবাইল ফোনে কথা বলা থেকে বিরত থাকুন, দুর্বল সিগন্যাল এলাকায় মোবাইল ব্যবহার করবেন না। এতে মোবাইল আরও বেশি করে ক্ষতিকর রশ্মি বিকিরণ করে।

-ছবি ও তথ্য – ইন্টারনেট

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন


     এই ধরনের আরো...