নাটকে সুযোগ দেবার ছলে তরুণী ধর্ষণ

নাটকে সুযোগ দেবার ছলে তরুণী ধর্ষণ

নাটকে অভিনয়ের সুযোগ দেবার নামে রাজধানীর এক তরুণী গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। নির্যাতিতা নিজে বাদী হয়ে রামপুরা থানায় মামলা করেছেন। তার মামলার পরিপ্রেক্ষিতে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে সংবাদ মাধ্যমের বরাতে এ খবর জানা যায়।
নির্যাতিতা মেয়েটি আসামিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চেয়েছেন।
মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, রামপুরার একটি ফাস্ট ফুড দোকানে তিনি চাকরি করেন। সেখানে একদিন নাহিদ শাহরিয়ার রাজ নামের এক যুবক তাকে টিভি নাটকে অভিনয়ের প্রস্তাব দেন। প্রস্তাবে রাজি হলে রাজ তাকে দেখা করার কথা বললে তিনি গত ৪ নভেম্বর রাতে হাতিরঝিলে আসেন। পরে সেখানে রাজের পরিচিত ডিজে সোহাগ এলে তাদের সঙ্গে ওই তরুণীর নাটকের স্ক্রিপ্ট নিয়ে কথা হয়।
এরপর সেখানে একে একে আসে হারুন মোল্লা, মাসুদ ও আজাদ। রাজ তাঁদের সঙ্গে তরুণীকে পরিচয় করিয়ে দেয়। তারপর রাত ১০টার দিকে আইসক্রিম খাওয়ানোর কথা বলে হারুন মোল্লা তরুণীকে গাড়িতে ওঠায়। এরপর জোরপূর্বক তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় নরসিংদীতে। সেখানকার একটি গাড়ির গ্যারেজে পালাক্রমে চারজন তাঁকে ধর্ষণ করে।
সেখান থেকে রাজধানীতে ফিরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি হন মেয়েটি। সেখানে তাঁর ডাক্তারি পরীক্ষা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত মেডিকেল রিপোর্ট পাওয়া যায়নি।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রামপুরা থানার পুলিশ পরিদর্শক মো. মনিরুজ্জামান খান তিন আসামিকে আদালতে হাজির করে দশ দিন রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন। তদন্ত জানা যায়, আসামি নাহিদ শাহরিয়ার রাজ ও ডিজে সোহাগ অর্থের বিনিময়ে ভিকটিম তরুণীকে অপর আসামিদের কাছে তুলে দেয়। আসামি হারুন তার নিজ প্রাইভেটকারযোগে তরুণীকে নরসিংদীতে নিয়ে সঙ্গীসহ পালাক্রমে ধর্ষণ করে।
এ ব্যাপারে রামপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রলয় কুমার সাহা বলেন, ঘটনার নেপথ্যের নায়ক মেয়েটির পরিচিত একজন। জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তার করে দ্রুতই বিচারের মুখোমুখি করা হবে।

Sharing is caring!

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *