জুয়ার আড্ডায় ক্রিকেটাররা: কেঁচো খুঁড়তে সাপ না বের হয়!

জুয়ার আড্ডায় ক্রিকেটাররা: কেঁচো খুঁড়তে সাপ না বের হয়!

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে টানা দুটি সিরিজ বাজেভাবে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার যন্ত্রণার মাঝে নতুন যন্ত্রণা হলো ক্রিকেটারদের জুয়ার আড্ডায় (ক্যাসিনো) যাওয়া। বর্তমানে বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় চলছে বাংলাদেশের ক্রিকেটাঙ্গনে।
বিসিবি বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করার ঘোষণা দিয়েছে। তদন্তের আগে কেউ মুখ খুলতে রাজী নন। তবে দলের মধ্যে বিষয়টি নিয়ে বেশ প্রভাব পড়েছে।
ইস্ট লন্ডনে ক্যাসিনোতে যাওয়া তিন ক্রিকেটারের নাম সামনে এসেছে। তারা হলেন অল-রাউন্ডার নাসির হোসেন এবং দুই পেসার শফিউল ইসলাম আর তাসকিন আহমেদ। সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে পরাজয়ের পর তারা তিনজন একটি ক্যাসিনোতে গিয়েছিলেন। হোটেলে ফিরেছেন নির্ধারিত সময়ের ৩৪ মিনিট পর। বিসিবির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, প্রাথমিকভাবে জানা গেছে একটি শপিং মলে দুই প্রোটিয়া ক্রিকেটার এবিডি ভিলিয়ার্স এবং কাগিসো রাবাদার সঙ্গে দেখা হয়েছিল নাসিরদের। তাদের সাথেই ক্যাসিনোতে গিয়েছিলেন।
কিন্তু সেখানে জুয়া খেলেননি, কেবল সবাই মিলে খাওয়া দাওয়া করেছেন।
কিন্তু কালের কণ্ঠের অনুসন্ধানে উঠে এসেছে, ব্লুমফন্টেইনেও ক্যাসিনোতে গিয়েছিলেন কয়েকজন বাংলাদেশি ক্রিকেটার। দ্বিতীয় টেস্ট, প্রথম ওয়ানডে এবং প্রস্তুতি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছিল ব্লুমফন্টেইনে। সেখানকার একটি ক্যাসিনোতে ওই ক্রিকেটারদের জুয়া খেলতে দেখেছেন অনেকে। দুটি ঘটনার মধ্যে কমন ব্যক্তি হিসেবে আছেন পেসার তাসকিন আহমেদ। বল হাতে যিনি পুরো সিরিজে ব্যর্থ!
আগামীকাল বৃহস্পতিবার ব্লুমফন্টেইনে শুরু হচ্ছে ২ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। দ্বিতীয় মেয়াদে টি-টোয়েন্টি অধিনায়কত্ব শুরু করতে যাচ্ছেন বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসান। আজ বুধবার ম্যানগাউং ওভালে অনুশীলন করবে ক্রিকেটাররা। তার মধ্যে এমন বিব্রতকর ঘটনা প্রকাশ হওয়ায় দলের মধ্যকার শৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। আর যাই হোক, বাঙালি সংস্কৃতিতে জুয়া খেলাকে খুব একটা ভালো চোখে দেখা হয়না। তাছাড়া একের পর এক ম্যাচে বাজে পারফরমেন্সের পর কেউ জুয়ার আড্ডায় যেতে পারে তা মানতে পারছেন না ক্রিকেটপ্রেমীরা।
বিসিবি ঘটনাটি নিয়ে তদন্ত করতে যাচ্ছে ভালো কথা। শঙ্কার বিষয় হলো, এই তদন্ত করতে গিয়ে কেঁচো খুঁড়তে সাপ বের না বের হয়ে আসে! উল্লেখ্য, ২০১৫ বিশ্বকাপের সময় জাতীয় দলের ম্যানেজার ও সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাহমুদ সুজনের ক্যাসিনোতে যাওয়া নিয়ে তোলপাড় হয়েছিল। তখন তিনিও বলেছিলেন, কেবল খাবার খেতেই ওই ক্যাসিনোতে যান তিনি। বাংলাদেশের ক্রিকেটের উন্নতির লগ্নে এমন অন্ধকার জগত যাতে শেকড় গাড়তে না পারে সেদিকে কড়া দৃষ্টি রাখতেই হবে।
– কালের কন্ঠ

Sharing is caring!

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *