লাইফ-স্টাইল

ঘুমানোর আগে যেসব ভুলে ত্বকের ক্ষতি

সুন্দর ত্বক আর তারুণ্য ধরে রাখতে কেনা চায়! তবে এর জন্য খুব বেশি পরিশ্রমের দরকার হয় না। দরকার একটু বাড়তি যত্নের। এক্ষেত্রে উজ্জ্বল আর ব্রণ মুক্ত ত্বক পেতে প্রতিদিন রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে করুন কিছু কাজ।

প্রতিদিন ঘুমাতে যাওয়ার আগে মেকআপ তোলার কথা আমরা কম-বেশি সবাই জানি। যদি নিয়মিত তা না করা হয় তাহলে ত্বকের অনেক ক্ষতি হয়। একইসঙ্গে উজ্জ্বল ত্বক পেতে রাতে ত্বকের যত্নে কিছু অভ্যাস গড়ে তোলা দরকার। আবার ত্বকের ক্ষতি এড়াতে কিছু অভ্যাস বাদ দেওয়াও কিন্তু সমান জরুরি। এতে ত্বক ভালো থাকার পাশাপাশি উজ্জ্বলতাও বাড়বে।রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে যেসব ভুলে ত্বকের ক্ষতি হয়-

সঠিকভাবে মুখ পরিষ্কার না করা-

রাতে ঘুমানোর আগে মেকআপ সঠিকভাবে পরিষ্কার করা জরুরি। তা না হলে ত্বকের মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। কেননা সঠিকভাবে পরিষ্কার না করলে মেকআপ ত্বকের লোমকূপ ও কোলাজেনকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। একইসঙ্গে ত্বকের ভারসাম্য নষ্ট করতে সাহায্য করে। এর ফলে ত্বকে ব্রণ, ভাজ পড়া এবং বুড়িয়ে যাওয়ার প্রবণতা অনেক বেড়ে যায়।

অনেক সময় নিয়ে মেকআপ তোলা-

অনেক সময় নিয়ে মেকআপ তুলতেও ত্বকের ক্ষতি হয়। আবার মেকআপ তোলার করার সময় গালে অতিরিক্ত ঘষামাজা করা কিংবা যদি অনিয়মিত টান পড়ে তাহলে ত্বকে সময়ের আগেই বলিরেখা পড়তে পারে। তাই ঘুমাতে যাওয়ার আগে ভালোভাবে ত্বক পরিষ্কার করুন। মেকআপ তুলতে দীর্ঘ সময় না নিয়ে বরং নির্দিষ্ট সময়ে ঘুমাতে যান।

খুব ঠাণ্ডা এবং গরম পানির ব্যবহার-

শীতের সকালে কম-বেশি সবাই হালকা গরম পানি দিয়ে গোসল সারতে ভালোবাসেন। হালকা গরম পানি ত্বকের জন্য ভালো হলেও অতিরিক্ত ঠাণ্ডা কিংবা গরম পানি ত্বকের ক্ষতি করে। এতে ত্বকের জ্বালাপোড়া করতে পারে। তাই ত্বকের ক্ষতি এড়াতে ঠাণ্ডা এবং গরম পানি এড়িয়ে চলুন

ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার না করা-

অনেকেই আছেন যারা মুখ ভালোভাবে পরিষ্কার করার পর ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করেন না। এতে ত্বকের ক্ষতি হয়। বিশেষজ্ঞরা বলেন, ২০, ৩০ কিংবা ৪০ বছস বয়স থেকে মুখ ধোয়ার পর একটি ভালোমানের ময়েশ্চারাইজার ক্রিম ব্যবহার করা উচিত। কারণ এটি ত্বকের কোলাজেনের ভাঙন কমিয়ে এর উৎপাদন বৃদ্ধি করে। তাই ত্বকের ক্ষতি এড়াতে ময়েশ্চারাইজার লাগানোর কথা ভুলবেন না।

কটনের বালিশ ব্যবহার-

বালিশে কটন কাপড়ের কভার ব্যবহার শুধু ত্বক নয়, চুলেরও ক্ষতি করে। এর ব্যবহারে রাতে মুখে ঘষা লেগে ত্বক জ্বালাপোড়া করতে পারে। এতে চুলও রুক্ষ হয়ে যায়। তাই ক্ষতি এড়াতে বালিশে সিল্ক কিংবা সাটিনের কভার ব্যবহার করা ভালো।

সুগন্ধি ডিটারজেন্টের ব্যবহার-

বালিশের কভার সুগন্ধি ডিটারজেন্ট দিয়ে ধুলে ঘুমানোর সময় এর রাসায়নিক পদার্থ আপনার ঘুমের ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। এখানেই শেষ নয়, এসব পদার্থ আপনার ত্বকের ফুসকড়ি উঠানোর জন্যও দায়ী। এতে ত্বক জ্বালাও করতে পারে। তাই ক্ষতি এড়াতে বিশেষজ্ঞরা সুগন্ধি ডিটারজেন্ট এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছেন। একই সঙ্গে সপ্তাহে অন্তত একবার তারা বালিশের কভার ধোয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। এক্ষেত্রে চাইলে আপনি সাবানও ব্যবহার করতে পারেন।

ঘুমানোর আগে ফেসবুক সময় কাটানো-

বিছানায় শুয়ে শুয়ে ঘুমানোর আগে মোবাইল কিংবা ল্যাপটপে সময় কাটালে ঘুমে ব্যাঘাত ঘটতে পারে। এতে ত্বকের মারাত্নক ক্ষতি হয়। এর ফলে ক্যান্সারের সমস্যাসহ হতাশাও বেড়ে যেতে পারে। বিশেষজ্ঞরা বলেন, উজ্জ্বল এবং স্বাস্থ্যকর ত্বকের জন্য পর্যাপ্ত ঘুম অনেক বেশি জরুরি। অন্যথায় আপনাকে অনেক ক্লান্ত এবং নিষ্প্রাণ দেখাবে। এর ফলে পরবর্তীতে ত্বকে জ্বালােপোড়া, ব্রণ, ডার্ক সার্কেল, বলিরেখা প্রভৃতি আরও নানা সমস্যা দেখা দিবে।

শুধু মুখে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার-

আমরা বেশিরভাগই শুধু মুখের যত্ন নিয়ে থাকি। শরীরের অন্য অঙ্গ-প্রতঙ্গগুলো তেমন একটা গুরুত্ব দেই না। এটি একদমই ঠিক নয়। এতেও ত্বকের নানা ক্ষতি হয়। ত্বকের যত্নে আমাদের শরীরের সব অংশের আলাদা আলাদাভাবে যত্ন নিতে হয়। বিশেষজ্ঞরা বলেন, শরীরের বিভিন্ন অংশের যত্ন আলাদাভাবে না নিলে আপনার ত্বক রুক্ষ এবং শুষ্ক হয়ে উঠবে। তাই ক্ষতি এড়াতে ঘুমানোর আগে শুধু মুখ নয়, শরীরের সব অংশের যত্ন নিন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *