,

আয় কমলেও দ্বিগুণ সম্পদ বৃদ্ধি হাজি সেলিমের

দলের টিকিট না পেলেও গত সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে পরাজিত করেন হাজি সেলিম। এবার অবশ্য আওয়ামী লীগ তাকে ঢাকা-৭ আসনে মনোনয়ন দিয়েছে। এরই মধ্যে হাজি সেলিম মনোনয়নপত্র দাখিলও করেছেন।

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ঘিরে নির্বাচন কমিশনে জমা দেয়া হলফনামা থেকে জানা গেছে, বিগত ৫ বছরে হাজি সেলিমের আয় কমলেও সম্পত্তি অনেক বেড়েছে।

হলফনামায় হাজি সেলিমের আয়ের উৎস উল্লেখ করা হয়েছে, বাড়ি/এপার্টমেন্ট/দোকান বা অন্যান্য ভাড়া থেকে পান ৬৬ লাখ ৯৭ হাজার ১০৫ টাকা। আর ব্যবসা থেকে পান ১ কোটি ১৬ লাখ ৬২ হাজার ৭৪ টাকা।

এ ছাড়া অন্যান্য সম্মানী ভাতা আসে ৫৭ লাখ ৩ হাজার টাকা। সব মিলিয়ে বছরে তিনি ২৪ কোটি ৬২ লাখ ১৭৯ টাকা আয় করেন।

যেখানে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের এই নেতার দেয়া হলফনামা পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, তখন বাড়ি/এপার্টমেন্ট/দোকান বা অন্যান্য ভাড়া বাবদ তিনি পেতেন ৫২ লাখ ৪১ হাজার ৪৮৮ টাকা। ব্যবসা থেকে তার বাৎসরিক আয় ছিল ১ কোটি ৬০ লাখ ১৫ হাজার ৭৬২ টাকা। শেয়ার ছিল ৩৯ লাখ ৩৩ হাজার ৩৬৮ টাকার। এছাড়া চাকরি ক্ষেত্র থেকে তার আয় ছিল ৪৯ লাখ ৬০ হাজার টাকা। সব মিলিয়ে তখন তার বাৎসরিক আয় ছিল ৩০ কোটি ১৫ লাখ ৬১৮ টাকা।

অন্যদিকে হাজি সেলিমের সম্পদের হিসাব পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, বিগত নির্বাচনের হলফনামায় তার ব্যক্তিগত অস্থাবর সম্পদ ছিল ২৭ কোটি ৯২ লাখ ৪৩ হাজার ২৩৮ টাকার এবং স্থাবর সম্পদ ছিল ১৬ কোটি ৮২ লাখ ৪৯ হাজার ৬২৭ টাকার।

আর এই নির্বাচনকে ঘিরে দাখিল করা হলফনামায় তার অস্থাবর সম্পদ রয়েছে ৫২ কোটি ১৫ লাখ ২৮ হাজার ৬১৮ টাকা আর স্থাবর সম্পত্তি রয়েছে ১৮ কোটি ৪৭ লাখ ৯ হাজার ৬২৮ টাকার, যা ৫ বছর আগের সম্পদের হিসাব থেকে প্রায় দ্বিগুণ।


     More News Of This Category