অনলাইনে সিনেমা দেখার ৯টি জনপ্রিয় অ্যাপ

ইন্টারনেট এখন শুধু তথ্য সমুদ্রই নয়। বিনোদনের সুবিশাল সংগ্রহ নিয়ে বেড়ে উঠছে এই ডিজিটাল দুনিয়া। আপনার ইচ্ছামাফিক যখন, যে কোনো দেশের যে কোনো সিনেমা দেখার সুযোগও তৈরি করেছে ইন্টারনেটের মুভি ক্লাব বা অ্যাপসগুলো।

এদের কোনোটা একেবারেই ফ্রি আবার কোনোটা পেইড। আপনার সুবিধামতো বেছে নিন কোথায় গিয়ে খুঁজে নেবেন আপনার বিনোদন। এমন কিছু দেশি-বিদেশি স্ট্রিমিং সেবার খোঁজখবর তুলে ধরা হল।

বায়োস্কোপ : টেলিকম অপারেটর গ্রামীণফোনের ভিডিও স্ট্রিমিং সেবা ‘বায়োস্কোপ’। খেলা, চলচ্চিত্র, নাটক ও টিভি শো দেখার সুবিধা রয়েছে। এ ছাড়া ৩৫টির মতো বাংলাদেশি ও ভারতীয় টিভি চ্যানেলও দেখা যাবে বায়োস্কোপে।

ইন্টারনেট গতি ভালো হলে কোনো ধরনের বাফারিং সমস্যা ছাড়াই ভিডিও উপভোগ করা যাবে এই অ্যাপে। তবে ইন্টারনেট গতি কম থাকলে ভিডিও রেজ্যুলেশন কমিয়ে বাফারিং ছাড়া দেখা যাবে। রেজ্যুলেশন কমাতে অ্যাপটিতে কোনো অনুষ্ঠান চালু করে ভিডিওর নিচে থাকা সেটিং আইকন থেকে রেজ্যুলেশন নির্ধারণ করা যাবে।

অ্যাপটি থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোনো অনুষ্ঠান শেয়ারের পাশাপাশি বন্ধুদের ইনবক্স জানানোও যাবে। পছন্দসই কোনো অনুষ্ঠান বা সিনেমা চাইলে প্রিয় বিভাগে রাখা যাবে, যা পরে বিভাগটি থেকে দেখে নেয়া যাবে।

কোনো সাবস্ক্রাইব ফি ছাড়াই বিনামূল্যে ব্যবহার করা যাবে অ্যাপটি। এ ছাড়া যে কোনো ব্রাউজার থেকে https://www.bioscopelive.com-এ গিয়ে সেবাটি উপভোগ করা যাবে। অ্যানড্রয়েড ওএস চালিত স্মার্ট টিভিতে অ্যাপটি ব্যবহার করা যাবে। তবে অ্যাপল টিভি ওএসের জন্য এখনও কোনো সংস্করণ আনা হয়নি।

আইফ্লিক্স : টেলিকম অপারেটর রবির ভিডিও স্ট্রিমিং সেবা ‘আইফ্লিক্স’। এতে এক্সক্লুসিভ শো, পুরস্কারপ্রাপ্ত টিভি সিরিজ, ব্লকবাস্টার সিনেমা, জনপ্রিয় স্থানীয় ও আঞ্চলিক কনটেন্ট এবং শিশুতোষ অনুষ্ঠানসহ বিনোদনের এক বিশাল ভাণ্ডার রয়েছে।

আইফ্লিক্সে অ্যাকশন, হরর, কমেডিসহ বিভিন্ন বিভাগ অনুযায়ী মুভি ও সিরিজ সাজানো রয়েছে। ফলে ব্যবহারকারীরা পছন্দমতো কনটেন্ট সহজে খুঁজে পাবেন। বাচ্চাদের জন্য রয়েছে বিশেষ সুবিধা।

কিডস বিভাগে গেলে শুধু বাচ্চাদের উপযোগী অনুষ্ঠান পাওয়া যাবে। এই সেবাটির মোবাইল অ্যাপের চমৎকার একটি ফিচার হল ডাউনলোড। চাইলে ইন্টারনেট ছাড়া অফলাইনে দেখার জন্য যে কোনো ভিডিও ডাউনলোড করে রাখা যাবে। অ্যাপের বাঁ পাশে থাকা ‘মাই ডাউনলোড’ অপশনে ডাউনলোড করা ভিডিওগুলো খুঁজে পাওয়া যাবে।

অ্যাপটিতে ওয়াচ হিস্টোরি, সার্চ, অফার ইত্যাদি বিভাগ রয়েছে। এ ছাড়া রয়েছে ব্যবহারকারীদের পছন্দমতো প্লে লিস্ট তৈরির সুবিধা। আইফ্লিক্স অ্যাপে জিমেইল, ফেসবুক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে সহজেই নিবন্ধন করা যাবে।

অ্যাপটি ডাউনলোড করে এক মাস ফ্রি ট্রায়াল ব্যবহার করা যাবে। পরে সাবস্ক্রাইব করতে হবে। সাবস্ক্রাইব ফি প্রতি মাসে ১০০ টাকা। এয়ারটেল ও রবি গ্রাহকরা সরাসরি মোবাইলের ব্যালান্স থেকে সাবস্ক্রাইব করতে পারবেন।

এ ছাড়া ভিসা ও মাস্টার কার্ডের মাধ্যমে সাবস্ক্রাইব করার সুবিধাও আছে। ব্রাউজার থেকে www.iflix.com ওয়েবসাইটে গিয়েও সেবাটি উপভোগ করা যাবে।

বাংলাফ্লিক্স : বাংলালিংকের স্ট্রিমিং সেবা হল ‘বাংলাফ্লিক্স’। এখানে লাইভ টিভি, মিউজিক ভিডিও, নাটক, পুরনো বাংলা সিনেমা ও ফ্যাশন নিয়ে বিভিন্ন ভিডিও কনটেন্ট পাওয়া যাবে। কোনো নিবন্ধন ছাড়া ফ্রি ভিডিওগুলো দেখে নেয়া যাবে।

বাংলাফ্লিক্সে নিবন্ধন করা যাবে শুধু বাংলালিংক মোবাইল নম্বর দিয়ে। বাংলাফ্লিক্স প্রথম ৩০ দিন বিনামূল্যে ব্যবহার করা গেলেও পরে সাবস্ক্রাইব করতে হবে। একদিনের জন্য ২.৪৪ টাকা, সাতদিনের জন্য ১২.১৮ টাকা এবং এক মাসের জন্য ৩৬.৫২ টাকা সাবস্ক্রাইব ফি।

বাংলালিংক গ্রাহকরা সরাসরি মোবাইলের ব্যালান্স থেকে সাবস্ক্রাইব করতে পারবেন। অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা এই ঠিকানা এবং আইওএস ব্যবহারকারীরা এই ঠিকানা থেকে অ্যাপটি ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন। এ

ছাড়া যে কোনো ব্রাউজার থেকে www.banglaflix.com.bd ওয়েবসাইটে গিয়ে সেবাটি উপভোগ করা যাবে।

হৈচৈ : হৈচৈ ভারতের জনপ্রিয় ভিডিও স্ট্রিমিং। হৈচৈ থেকে বিভিন্ন ওয়েব সিরিজ প্রচার করা হয়। এ ছাড়া এতে মুভি, মিউজিক ভিডিওসহ বিভিন্ন টিভি শো দেখা যাবে। অফলাইন ভিডিও ডাউনলোড সুবিধা রয়েছে হৈচৈ-এর মোবাইল অ্যাপে। তবে এ ক্ষেত্রে সাবস্ক্রাইব করতে হবে। হৈচৈ-এ কিছু কিছু ভিডিও কনটেন্ট ফ্রি দেখা যাবে।

তবে সব কনটেন্ট দেখতে হলে সাবস্ক্রাইব করতে হবে। এক বছরের জন্য ৯.৯৯ মার্কিন ডলার এবং এক মাসের জন্য ১.৪৯ মার্কিন ডলার সাবস্ক্রাইব ফি দিতে হবে। এ ছাড়া যে কোনো ব্রাউজার থেকে www.hoichoi.tv ওয়েবসাইটে গিয়ে সেবাটি উপভোগ করা যাবে।

মুভ প্লে : এই দেশি ‘মুভি স্ট্রিমিং’ সেবায় সিনেমা দেখার পাশাপাশি সহজেই বড় সাইজের সিনেমা ডাউনলোড করা যাবে কয়েক মিনিটের মধ্যে। বাংলা মুভির পাশাপাশি এতে হলিউড, বলিউড, তামিল সিনেমাও পাওয়া যাবে। এতে ক্রাইম, কমেডি, অ্যানিমেশন, হরর বিভাগ রয়েছে। ইংরেজি অক্ষর অনুযায়ী মুভিও খুঁজে পাওয়ার সুবিধা আছে।

সিনেমা ডাউনলোড করার জন্য মুভ প্লেতে (http://movply.stream) অবশ্যই নিবন্ধন করতে হবে। এই সেবাটির মোবাইল অ্যাপও রয়েছে। https://bit.ly/2rDpEi7 থেকে অ্যাপটি ডাউনলোড করে বিনা মূল্যে ব্যবহার করা যাবে সেবাটি।

নেটফ্লিক্স : সারা বিশ্বে অনলাইন ভিডিও স্ট্রিমিং সেবার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হলো ‘নেটফ্লিক্স’। এই মুহূর্তে ২০০টির বেশি দেশে নেটফ্লিক্সের কার্যক্রম আছে। ২০১৬ সালের শেষের দিকে বাংলাদেশে এই সার্ভিসটি চালু হয়, যদিও তাদের কোনো অফিস নেই এই দেশে। নিজেদের তৈরি কনটেন্ট খুঁজে পাওয়া যাবে নেটফ্লিক্স অরিজিনাল বিভাগে।

এ ছাড়া আরও মিলবে বিভিন্ন টিভি সিরিজ, মুভি ও টিভি চ্যানেল। নেটফ্লিক্সে বাংলাদেশ ও কলকাতার অনেক বাংলা সিনেমাও পাওয়া যাবে। তবে বিনামূল্যে নেটফ্লিক্সের সেবা মিলবে না। নেটফ্লিক্সের মাসিক স্ট্রিমিং প্যাকেজ তিন রকমের হয়ে থাকে- বেসিক, স্ট্যান্ডার্ড ও প্রিমিয়াম।

বেসিক প্যাকেজে থাকছে মাসিক আট ডলারে (৬৪০ টাকা) একটি স্ক্রিনে এসডি (স্ট্যান্ডার্ড ডিসপ্লে) রেজল্যুশন মুভি আর টিভি ধারাবাহিক দেখার সুবিধা। স্ট্যান্ডার্ড প্যাকেজে থাকছে মাসিক ১০ ডলারে (৮০০ টাকা) দুটি স্ক্রিনে, এইচডি (হাই ডিসপ্লে) রেজল্যুশনে মুভি আর টিভি ধারাবাহিক দেখার সুবিধা।

প্রিমিয়াম প্যাকেজে থাকছে মাসিক ১২ ডলারে (৯৬০ টাকা) চারটি স্ক্রিনে এইচডি ও ইউএইচডি (আলট্রা হাই ডিসপ্লে) রেজল্যুশনে স্ট্রিমিং সেবা উপভোগের সুবিধা। আন্তর্জাতিক ক্রেডিট কার্ড মাস্টার বা ভিসা কার্ডের মাধ্যমে প্যাকেজগুলো কেনা যাবে। এ ছাড়া ব্রাউজার থেকে www.netflix.com ওয়েবসাইটে গিয়েও সেবাটি উপভোগ করা যাবে।

অ্যামাজন প্রাইম ভিডিও : জনপ্রিয় ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম অ্যামাজনের ভিডিও স্ট্রিমিং সেবা ‘অ্যামাজন প্রাইম ভিডিও’। এতে বিভিন্ন মুভি, টিভি সিরিজ, টিভি চ্যানেলসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠান দেখার সুবিধা রয়েছে। তবে বিনা মূল্যে নয়, এর জন্য সাবস্ক্রাইব করতে হবে। প্রতি মাসে ব্যয় করতে হবে ৫.৯৯ মার্কিন ডলার।

প্রথম ছয় মাসে ২.৯৯ ডলারে সাবস্ক্রাইব করা যাবে। আন্তর্জাতিক ক্রেডিট কার্ড মাস্টার, ভিসা কার্ডের মাধ্যমে সাবস্ক্রাইব ফি দেয়া যাবে। অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা এই ঠিকানা (https://goo.gl/To5YwR) এবং আইওএস ব্যবহারকারীরা এই ঠিকানা (https://apple.co/2KKbswe) থেকে অ্যাপটি ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন। এ ছাড়া যে কোনো ব্রাউজার থেকে http://primevideo.com ওয়েবসাইটে গিয়েও সেবাটি উপভোগ করা যাবে।
পপকন টাইম : পপকন টাইমকে বলা যায় অনলাইন মুভি ও টিভি শোর ভাণ্ডার। পপকন টাইম ব্যবহার করতে হলে www.popcorn-time.toতে গিয়ে ব্যবহারকারীদের ডিভাইস অনুযায়ী সফটওয়্যার নামিয়ে নিতে হবে। এটি অ্যান্ড্রয়েড, আইওএস, উইন্ডোজ, ম্যাক ও লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেম সমর্থন করবে।

সফটওয়্যারটি ইনস্টল করে চালু করলে মুভি ও টিভি শোর পোস্টার ও নাম প্রদর্শিত হবে। পছন্দসই সিনেমায় ক্লিক করলে নতুন একটি পেজ চালু হবে। সেখান থেকে মুভিটি কোনো রেজল্যুশনে দেখতে চান নির্ধারণ করে ‘watch it now’ বাটনে ক্লিক করতে হবে। চাইলে নিচে ডান পাশে থাকা ‘trailer’ বাটনে ক্লিক করে মুভি ট্রেলারটি দেখে নেয়া যাবে।

ডাউনলোড শেষ হলে মুভিটি দেখা যাবে। পাশাপাশি এটা দিয়ে আলাদাভাবে মুভিও ডাউনলোড করা যাবে। আর এই সেবা পাওয়া যাবে বিনামূল্যে।

হটস্টার : ভারতের স্টার গ্রুপের ভিডিও স্ট্রিমিং সেবা ‘হটস্টার’। সরাসরি খেলা দেখানোর জন্য হটস্টারের বেশ সুনাম আছে। খেলা ছাড়াও মুভি এবং অনেক টিভি শোও রয়েছে হটস্টারের ভাণ্ডারে। বিনামূল্যে ব্যবহার করা যাবে এই সেবা। এমনকি হটস্টারের ওয়েবসাইট বা অ্যাপে নিবন্ধন না করেও দেখা যাবে অনেক ভিডিও।

তবে খানিকটা বিজ্ঞাপনের হ্যাপা সামলাতে হবে। চাইলে সাবস্ক্রাইব করে বিজ্ঞাপনের ঝামেলামুক্ত হওয়া যাবে। এর জন্য প্রতি মাসে ব্যয় করতে হবে ১৯৯ রুপি। আন্তর্জাতিক ক্রেডিট কার্ড মাস্টার বা ভিসা কার্ডের মাধ্যমে হটস্টারের এই সেবা কেনা যাবে।

অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা এই ঠিকানা এবং আইওএস ব্যবহারকারীরা https://apple.co/1AQsvo0 থেকে অ্যাপটি ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন। এ ছাড়া যে কোনো ব্রাউজার থেকে http://www.hotstar.com ওয়েবসাইটে গিয়েও সেবাটি উপভোগ করা যাবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *